Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Wednesday, August 30, 2017

যেসব জিনিস গুলো ফ্রিজে না রাখাই ভালো

হাতের কাছে যা পাচ্ছেন, তাই-ই ফ্রিজে তুলে রাখছেন। তরতাজা থাকুক। সবজি, রান্না করা খাবার, পানীয়, হালকা খাবার, মশলা, প্রসাধনী সবই। প্রতিদিনের অভ্যাস। কিন্তু সব কিছু কি আর ফ্রিজে রাখলেই চলবে? কিছু জিনিস আছে যেগুলো ফ্রিজে না রাখাই ভালো। আজকের প্রতিবেদনে জেনে নিন সেসবের খোঁজ-খবর।আলু: ফ্রিজে রাখলে এর গন্ধ চলে যায় এবংআলুর মধ্যে থাকা শর্করা দ্রুত বাড়তে থাকে। আলু ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ভালো থাকে।মধু: ফ্রিজে থাকলে মধুর মধ্যে একটা ‘ক্রিস্টাল’ ভাব আসে। এতে মধুর গুণ নষ্ট হতে থাকে। মধু ভালো রাখতে হলে কাঁচের বোতলে করে ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখুন। অনেকদিন ধরে মধুর স্বাভাবিক গুণ বজায় থাকবে।তরমুজ: ফ্রিজে সাধারণত ফল ভালো থাকে না। ফ্রিজের ঠান্ডায় তরমুজে ‘চিল ইনজুরি’ হয়। এতে ফলে ব্যকটেরিয়া জন্ম নেয়। স্বাদ নষ্ট হয়, রং ফিকে হয়ে যায়। ওই অবস্থায় তরমুজ খেলে পেটের ক্ষতি হতে পারে।পাউরুটি: ঠান্ডা থেকে পাউরুটিকে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখলে দ্রুত শুকোতে থাকে। ফলে পাউরুটি ঝুরঝুরে হয়ে যায়। প্রয়োজনে পাউরুটি ডিপ ফ্রিজে রাখা যেতে পারে। প্রতিদিন খাবারের তালিকায় যে পরিমাণ পাউরুটি রাখবেন, তা তিন-চার দিন আগে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় বের করে রাখলে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা কমবে।কফি: ফ্রিজে রাখলে দ্রুত গন্ধ হারায়। এমনকি ফ্রিজে থাকা অন্য জিনিসের গন্ধও কফির মধ্যে প্রবেশ করে। পাশাপাশি অতিরিক্ত ঠান্ডা কফিকে ড্যাম্প করে দেয়।কলা: কলা ফ্রিজে রাখলে একদিনেই পরিপক্কতা হারায়। স্বাভাবিক গুণাবলীও নষ্ট হয়। বেশি ঠান্ডায় রাখলে কলার পটাশিয়ামও কমে যায়।পেঁয়াজ: বেশি ঠান্ডায় এটা নরম হয়ে যায়। অন্য জিনিসের গন্ধও পেঁয়াজ খুব দ্রুত গ্রহন করে। এটা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখাই ভালো।অলিভ অয়েল: এটা ঠান্ডায় জমে যায়। ঠান্ডায় অলিভ অয়েলের ভেতরে কিছু রাসায়নিক বিক্রিয়া হয়, যা শরীরের জন্যক্ষতিকর।টমেটো: অত্যাধিক ঠান্ডায় টমেটোর স্বাভাবিক গুণ নষ্ট হয়। ফাঙ্গাস ধরে যায়।রসুন: আস্ত রসুন ফ্রিজে না রাখাই ভালো। এর কোয়া অতিরিক্ত ঠান্ডায় শুকিয়ে যায়। তবে রসুনের পেস্ট করে ডিপফ্রিজে ১০-১৫ দিন রাখা যেতে পারে।

Post Top Ad

Your Ad Spot

Pages