Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Thursday, March 30, 2017

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ছাত্রলীগ নেতার বিষপান!

জামালপুরে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ কর্তৃক
মিথ্যা মামলায় তিনমাস জেল খাটার পর
কারাগার থেকে বের হয়ে বকশীগঞ্জ থানার
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আসলাম হোসেনকে
দায়ী করে ফেসবুকে স্টাটাস দিয়ে বিষ খেলেন
ছাত্রলীগ নেতা মোঃ আসাদুজ্জামান।
আজ বুধবার (২৯ মার্চ ) দুপুরে এ স্ট্যাস্টাস
দেওয়ার কিছুক্ষণ পরেই বিষপান করেন তিনি।
ফেসবুকে মৃত্যুর জন্য বকশীগঞ্জ থানার
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম
হোসেকে দায়ী করে তিনি লিখেন ‘আমি যদি
বিষ খেয়ে মারা যাই দয়া করে আমার লাশটা
কেটনা আমার এ বুকে আমার আম্মা থাকে।
লাশটা লাটলে (কাটলে) আম্মা কষ্ট পাবে। আর
আমার মরার পিছনে বকশীগঞ্জ থানার ওসি
আসলাম স্যার দায়ী। সে আমার জীবনটা নষ্ট
করে দিয়েছে। বিনা অপরাধে ৩ মাস হাজতে
রেখেছিল। হাজত থেকে এসে দেখি সেই তিন
মাসে আমার সব কিছু হারিয়ে গেছে।’
বুধবার দুপুরে এ স্ট্যাস্টাস দেওয়ার কিছুক্ষণ
পরেই বিষপান করে তিনি। আসাদুজ্জামান
বকশীগঞ্জ উপজেলার নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের
নিলক্ষিয়া গ্রামের দুদু মিয়ার ছেলে ও ইউনিয়ন
ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ভাই।
আসাদ নিজেও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের একজন
নেতা।
নিলক্ষিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি
সাদ্দাম হোসেন জানান, আসাদের বাংলাদেশ
বিমান বাহিনীর চাকুরী হয়েছিল।
যোগদানের মাত্র একদিন আগে রাস্তা থেকে
পুলিশ তাকে আটক করে। পরদিন ডাকাতি
প্রস্তুতি মামলা সাজিয়ে জামালপুর কোর্টে
চালান দেয় তাকে। সেই মামলায় প্রায় ৩ মাস
তিনি জেল হাজতে ছিলেন। বের হয়েই সাধারণ
মানুষের নানান বঞ্চনার শিকার হতে থাকেন।
বুধবার দুপুরে বিষ খেয়েছে জানালে তাকে
বকশীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি
করানো হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য
জামালপুর মেডিকেল হাসপাতালে স্থানান্তর
করে। বর্তমানে চিকিৎসাধীন, তবে শঙ্কামুক্ত
নন তিনি।
এ প্রসঙ্গে বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত
কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন জানান,
কেউ যদি ফেসবুকে লেখে এ ধরনের কাজ করেন
তবে আমার কিছু করার নেই। সে সময়কার
দায়িত্বরত পুলিশের সদস্যরা তাকে রামদাসহ
থানায় ধরে এনেছিল। পরে যথাযথ নিয়মেই তাকে
কোর্টে চালান দেওয়া হয়।

Post Top Ad

Your Ad Spot

Pages