Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Friday, December 2, 2016

চুল পড়ার কারণ ও প্রতিকার

আপনি শুনলে অবাক হবেন যে চুল পড়ার প্রায় দুই হাজার কারণ রয়েছে। তাই যদি কেউ এই সমস্যায় আক্রান্ত হন তাহলে টেস্ট করে দেখে নিতে হবে আসল কারণটি কি। যদিও হোমিও ডাক্তাররা লক্ষণ এর উপর ভিত্তি করে ঔষধ প্রদান করেন কিন্ত বেশির ভাগ সময় দেখা যায় সঠিক কারণ নির্ণয়ের অভাবে সমস্যাটির সমাধান করতে তারা ব্যর্থ হন। এখানে চুল পড়ার দৃশ্যত কিছু কারণ উল্লেখ করা হলো :
চুল পড়ার কারণ :-
বংশগত প্রবণতা – পারিবারিক ইতিহাস চুল পড়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি করে।
অত্যধিক আঁচড়ানো – এ কারনেও মাথা থেকে চুল পড়ে যেতে পারে।
চর্ম রোগ – সোরিয়াসিস, একজিমা চর্ম প্রদাহের কারনে সাধারণভাবে চুল পড়তে পারে।
অটোইমিউন রোগ – SLE, Vitiligo বা স্বেত রোগ ইত্যাদির মত কিছু অটোইমিউন রোগের সঙ্গে চুল পড়ার সম্পর্ক আছে।
হরমোন জনিত রোগ – এছাড়াও হরমোনের ব্যাঘাতে হাইপারথাইরয়েডিজম, হাইপোথাইরয়েডিজম মত রোগে এ অবস্থা হতে পারে।
পুষ্টির অভাব – পুষ্টির ঘাটতি যেমন লৌহ, ভিটামিন, দস্তার অভাবে চুল পড়ে।
উচ্চশক্তিসম্পন্ন বা তেজস্ক্রিয় রশ্মি প্রয়োগ করে রোগের চিকিত্সা অথবা কেমোথেরাপি – ক্যান্সারের মত নির্দিষ্ট কিছু রোগে গুরুতর চুলের ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়ায়।
পোড়া – পোড়া চামড়ার যে কোন স্থানে চুলের ক্ষতি হয়।
রজঃনিবৃতি কাল – রজঃনিবৃতি কালে মহিলাদের চুল পড়া খুবই সাধারণ ব্যপার।
অন্যান্য কারণ – প্রধানত উচ্চ জ্বর, বড় সার্জারি, রক্তক্ষরণ, নির্দিষ্ট কিছু ওষুধ গ্রহণ, অনাহার, রাসায়নিক পদার্থ, মূত্রাশয় কর্মহীনতা ইত্যাদি কারণে চুল পড়ে যেতে পারে।
প্রতিকার :-
নিম্ন লিখিত খাবারগুলো নিয়মিত খেলে চুল পড়া কমতে পারে-
গাঢ় সবুজ শাক-সবজি খেতে হবে যাতে রয়েছে ভিটামিন-এ, ভিটামিন-সি এবং ভিটামিন-ই আছে যা natural conditionar হিসেবে কাজ করবে ।
তিসি চুলের জন্য ভীষণ উপকারী।
শিমের বিচি, মটর শুটি, বরবটি ইত্যাদ যা প্রোটিনের ভালো উৎস। এছাড়াও আয়রণ, জিঙ্ক ও বায়োটিন আছে যা চুল ভেঙ্গে যাওয়া প্রতিরোধ করে।
লাল চাল,লাল আটা খেতে হবে যাতে জিঙ্ক, আয়রণ ও ভিটামিন-বি পাওয়া যায়।
কাঠ বাদাম, কাজু বাদাম, আখরোটও natural conditionar এর কাজ করে।
খাবার তালিকায় প্রথম শ্রেণীর প্রোটিন যেমন-মুরগী, ডিম রাখতে হবে।
কম চর্বি যুক্ত দুধে ক্যালসিয়াম আছে, যা চুলের বৃদ্ধির জন্য অত্যাবশকীয় উপাদান।
সূর্যমূখীর বীচি চুলকে মজবুত ও ঝলমলে করতে দারুন ভাবে কাজ করে।
গাজর ভিটামিন-এ এর ভাল উৎস যা প্রতিদিন সালাদ হিসেবে খাওয়া যায়

Post Top Ad

Your Ad Spot

Pages