Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Sunday, December 4, 2016

ঘরে বসে ওয়াক্সিং করবেন যেভাবে

অবাঞ্চিত লোম সবারই থাকে। এটি নিয়ে দুশ্চিন্তা বা মন খারাপ করে বসে থাকার কোন মানেই হয় না। কারণ অবাঞ্চিত লোম থেকে মুক্তি পাওয়ার অনেক উপায় আছে। থ্রেডিং, লেসার, শেভিং, ওয়াক্সিং হল এসব উপায়। সবচেয়ে ভালো উপায় হল ওয়াক্সিং কারণ এতে ক্ষতিকর প্রভাব নেই এবং নিয়মিত করলে অনেকের অবাঞ্চিত লোম কমেও যায়। আপার লিপস, হাত, পা, আন্ডার আর্মস সহ শরীরের প্রায় সব অংশের অবাঞ্চিত লোম-ই ওয়াক্সিং করে দূর করা যায়। প্রত্যেক জায়গাতেই ওয়াক্সিং করার পদ্ধতি একই রকম। পার্লারে গিয়ে ওয়াক্সিং করতে অনেকে স্বাচ্ছ্যন্দবোধ করেন না।তাই তাদের জন্য ঘরে বসে পায়ে ওয়াক্সিং করার পদ্ধতি এখানে লেখা হল।
ওয়াক্সিং করতে যা যা লাগবে-
হট ওয়াক্সিং ক্রিম
ওয়াক্সিং স্ট্রিপ বা শক্ত সুতির কাপড়
ওয়াক্সিং স্টিক বা কাঠি
গরম পানি
পাউডার
পদ্ধতি-
প্রথমে যে অংশে ওয়াক্স করবেন সেখানে হাল্কা পাউডার লাগিয়ে নিন।
গরম পানিতে ওয়াক্সিং ক্রিম এর কৌটা ভিজিয়ে তা গলিয়ে নিন।
ক্রিম হাল্কা গরম থাকা অবস্থায় পায়ের একটি অংশে ওয়াক্সিং স্টিক দিয়ে তা লাগিয়ে নিন। ১০ সেকেন্ড এর মধ্যে ওয়াক্সিং স্ট্রিপ দিয়ে চেপে ধরুন যেখানে ক্রিম লাগিয়েছেন। লোম যে দিকে উঠে সেই দিকে স্ট্রিপের উপর ৫-১০ সেকেন্ড হাত দিয়ে ঘষুন।
আপনার পায়ের লোম যে দিক থেকে উঠে তার বিপরীত দিক থেকে ওয়াক্সিং স্ট্রিপ জোরে টান দিন। আস্তে টান দিলে লোম উঠবে না এবং ব্যাথা বেশি লাগবে।
এভাবে পায়ের বাকি অংশে ওয়াক্স করে ফেলুন।
ওয়াক্স হয়ে গেলে পা ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে ফেলুন।
এভাবেই শরীরের অন্যান্য অংশে ওয়াক্স করে ফেলতে পারেন।
সতর্কতাঃ
ওয়াক্সিং শুরু করার আগে হাতে বা পায়ে অল্প একটু জায়গায় আগে করে দেখবেন। যদি দেখেন কোন সমস্যা হয়নি তাহলে বাকি অংশে করবেন।
একই জায়গায় ২/৩ বারের বেশি টান দিবেন না। চামড়া ছুলে যেতে পারে।
আন্ডার আর্মসে ওয়াক্স করার আগে লুফাহ/এক্সফলিয়েটিং টাওয়েল, সাবান ও পানি দিয়ে স্ক্রাব করে নিবেন। এতে ওখানের চামড়া সফট হবে ও কম ব্যাথা লাগবে।
ওয়াক্সিং করার ২৪ ঘন্টার মধ্যে সেখানে সাবান, ডিওডোরেন্ট বা স্প্রে লাগাবেন না।
আইব্রো বা আপার লিপস ওয়াক্স করার ক্রিম হাত পায়ের ক্রিম থেকে আলাদা। এটা মাথায় রেখে ক্রিম কিনবেন।

Post Top Ad

Your Ad Spot

Pages