Breaking

Post Top Ad

Your Ad Spot

Monday, November 14, 2016

বিসিএস পরীক্ষায় কেমন ধরনের প্রশ্ন বেশি থাকে ?

বিসিএস পরীক্ষার তিনটি ধাপের মধ্যে প্রথমেই হলো প্রিলিমিনারি টেস্ট। এই প্রিলিমিনারি পরীক্ষায়, দুই ঘণ্টা সময়ে ১০টি বিষয়ের ওপর মোট ২০০ নম্বরের এমসিকিউ পদ্ধতিতে উত্তর দিতে হবে। বাংলা, ইংরেজী, গণিত, সাধারণজ্ঞান, বিজ্ঞান-প্রযুক্তি তো আছেই সাথে ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব), পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি এবং নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন বিসিএস এর সাথে যুক্ত হয়েছে।
.
উপরের সবগুলো বিভাগ থেকেই প্রশ্ন আসবে। তবে বাংলা, ইংরেজী এবং গণিত বিষয়ে প্রশ্নটা বেশি থাকবে। বাংলার ক্ষেত্রে বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এর ওপর নজর দিতে হবে। বাংলা সাহিত্যের প্রধান লেখকদের সব বইয়ের নাম ও বিষয় সম্পর্কে ধারনা রাখতে হবে। এ থেকে প্রশ্ন আসে। বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলির জন্য পত্রিকা পড়া জরুরি। পত্রিকার উপসম্পাদকীয় ও কলামগুলো পড়লে অনেক তথ্য জানা যায়, সমসাময়িক ঘটনার বিবরণ সম্পর্কে ধারণা স্পষ্ট হয়।
.
এ ছাড়া বাংলাদেশের সংবিধান সম্পর্কে ধারণা থাকা জরুরি। গাণিতিক যুক্তির জন্য অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণির গণিত বইগুলো চর্চা করা দরকার। নিয়মিত গণিত চর্চার বিকল্প নেই।
একটু লক্ষ করলে দেখা যাবে, নতুন সংযোজিত বিষয়, যেমন: ভূগোল, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি, মানসিক দক্ষতা সম্পর্কে কিন্তু আগেও প্রশ্ন আসত। বর্তমানে শুধু বিষয়বস্তুগুলো আলাদা করে নম্বর বণ্টন করা হয়েছে। অতএব, প্রস্তুতি একইভাবে নিলেই চলবে। পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য নবম-দশম শ্রেণির সামাজিক বিজ্ঞান বইটি বেশ কাজে দেবে।
বিসিএস পরীক্ষায় ভালো করা মূলত নির্ভর করে ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞান ও বাংলা এ চারটি বিষয়ের ওপর। এ চারটি বিষয় জোর দিয়ে পড়ুন। যে প্রশ্নগুলো কঠিন মনে হবে, সেগুলো একাধিকবার পড়ুন। যদিও নতুন নিয়ম, তবু পরীক্ষায় ভালো করার জন্য বিগত পরীক্ষার প্রশ্নগুলো সমাধান করে ফেলুন। এতে করে কোন ধরনের প্রশ্ন বেশি আসে সে সম্পর্কে আপনার ধারণা জন্মাবে।

Post Top Ad

Your Ad Spot

Pages